technology_stockxpertcom_id1218361_size1_xlargeনিত্যনতুন প্রযুক্তির ব্যবহার আপনার প্রতিষ্ঠানের সাফল্যের চাবিকাঠি হিসেবে কাজ করতে পারে। তবে, হিতে বিপরীত হওয়ার সম্ভাবনাও একদম কম নয়। নতুন নতুন প্রযুক্তির পেছনে ছুটতে গিয়ে আপনার প্রতিষ্ঠানও পিছিয়ে পড়তে পারে। বিশেষ করে, আপনি যদি প্রতিষ্ঠানের বা প্রতিষ্ঠানের কর্মীদের উন্নয়নের পরিবর্তে উন্নত প্রযুক্তির জন্যই বেশি ছুটতে থাকেন।

ইক্যুইপমেন্টের উন্নতির প্রশ্ন উঠবে কখন?
একটা উদাহরণ দেওয়া যাক। সাইকেল চালানোর কথাই ধরুন । সাইক্লিংয়ের জন্য এখন বিভিন্ন ধরনের সাইকেল পাওয়া যায়। আর তার অনেকগুলো বেশ দামিও বটে। লাখ টাকার সাইকেলও এখন দুর্লভ নয়। পেশাদার সাইক্লিস্ট তো বটেই, এমনকি অনেক আনকোরা সাইক্লিস্টও এমনি দামি সাইকেল চালিয়ে থাকে। শুধু তাই নয়, সাইকেলের পারফর্ম্যান্স বৃদ্ধির জন্য তারা বেশ বাড়তি খরচও করে থাকে।

আমার এক সাইক্লিস্ট বন্ধুর এ ধরনের একটা গল্প বলা যাক। বন্ধুটি পেশাদার সাইক্লিস্ট। একবার কোনো এক অনুষ্ঠানে, বা প্রতিযোগিতা শেষে আমার বন্ধুটিকে কয়েকজন উঠতি সাইক্লিস্ট ঘিরে ধরল। ওদের স্বপ্ন পেশাদার সাইক্লিস্ট হওয়ার। সঙ্গে আমিও ছিলাম। তো, এক উঠতি সাইক্লিস্ট এসে আমার বন্ধুটির কাছে সাইকেল কেনার জন্য পরামর্শ চাইলো। বলল, সে একটা বেশ দামি সাইকেল দেখেছে। দাম অনেক, তেমনি হালকাও। অতো হালকা সাইকেলের জন্য একটু বেশি খরচ তো করা যেতেই পারে, তাই না?

না, আমার বন্ধুটি তাকে হতাশ করল। বলল, তোমার জায়গায় আমি থাকলে হালকা সাইকেলের জন্য বাড়তি খরচ করতাম না। বদলে, নিজের ওজনটাই একটু কমিয়ে নিতাম।

এমন উত্তর পেয়ে উঠতি সাইক্লিস্টরা বেশ কষ্টই পেল। সাথে সাথেই ওরা চলে গেল। ওদের জন্য আমিও সমবেদনা অনুভব করলাম। আমার বন্ধুটিকে বললাম, এমনিভাবে উত্তর দেওয়াটা তার মোটেই উচিত হয়নি। কথাটা অন্যভাবে তো বলা যেত!

আমার বন্ধু বলল, তা যেত। তবে দেখো, সবার কিন্তু উচিত আগে নিজের দিকে তাকানো। তা না করে, সবাই তার আশেপাশের জিনিসের দিকেই বেশি মনোযোগ দেয়। কোনো খেলায় তুমি যতক্ষণ পর্যন্ত তোমার সেরাটা দিতে না পারছো, ততক্ষণ পর্যন্ত তোমার নিজের উন্নতি করারই অনেক জায়গা আছে। ততক্ষণ পর্যন্ত তোমার ইক্যুইপমেন্টের উন্নতির প্রশ্ন জরুরি নয়। তবে, সেজন্য তোমাকে অবশ্যই কঠোর পরিশ্রম করতে হবে।

ঠিক কোথায় আপনি বিনিয়োগ করবেন?
আপনার প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রেও ব্যাপারটা একই রকম। আপনি এবং আপনার কর্মীদের উন্নতির আগেই যদি আপনার প্রতিষ্ঠানে ব্যবহৃত প্রয্ুিক্তর উন্নয়ন করে ফেলেন, আখেরে তা আপনার অবনতির কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। একবার আমি এক প্রতিষ্ঠানে গেলাম। একটি ম্যানুফ্যাকচারিং কারখানায়। সেখানকার ডাটা কালেকশন সিস্টেমটি দেখলাম পুরোটাই স্বয়ংক্রিয় পদ্ধতিতে হচ্ছে। কিন্তু, ডাটা কালেকশনের কাজ তেমন দ্রুততার সঙ্গে হচ্ছে না। এমনকি ন্যূনতম বেঞ্চমার্কও অর্জন করা যাচ্ছে না। কারণ, সেই স্বয়ংক্রিয় পদ্ধতির সঙ্গে কর্মীদের সম্পর্কটি যথার্থ নয়। কর্মীব্যবস্থাপনা যথার্থ নয়। আর তাই, প্রযুক্তিগত কাজ দ্রুত হলেও, কর্মীদের শ্রমের নিদারুণ অপচয় হচ্ছে। দিনের বেশির ভাগ সময়ই কর্মীরা অলস কাটিয়ে দিচ্ছে।

আমি কারখানার ম্যানেজারকে বিষয়টি বলতেই তিনি বললেন, দেখুন, প্রতিষ্ঠান হিসেবে আমরা কিছু নীতিতে অটল। আমরা আমাদের কর্মচারীদের তাদের প্রয়োজনীয় সকল টুলস দিতে বদ্ধপরিকর।

নীতি হিসেবে বক্তব্যটি বেশ আকর্ষণীয় বটে। তবে নীতিটিকে আঁকড়ে থাকলে, তা অবনতির কারণ হয়েও দাঁড়াতে পারে। যেমন ধরুন, যে কারখানার কথা বলছিলাম। তাদের ডাটা কালেকশন সেন্টারে তারা প্রচুর খরচ করে দ্রুতগতির প্রসেসরসহ হাই-টেক কম্পিউটার বসিয়েছে। অথচ, সেখানে কর্মীদের কাজ করতে হয় স্প্রেডশিটে আর সাধারণ ডাটাবেইজে। অর্থাৎ, দ্রুতগতির হাই-টেক কম্পিউটারের কোন দরকারই তাদের ছিল না।

প্ল্যান্টটিরই অন্য ডাটা কালেকশন সেন্টারটির আউটপুট বেশ ভালো। যদিও সেই সেন্টারটির কাজের প্রক্রিয়া পুরোপুরি স্বয়ংক্রিয় ছিল না, ডাটা কালেকশনের অনেকটাই ম্যানুয়ালি করতে হতো। সেন্টার দুটির মূল পার্থক্য হিসেবে বলা যায়, সঠিক জায়গায় অর্থ বিনিয়োগ করা। বাকিটুকু সম্পন্ন করে দেয় কর্মীদের দক্ষতা, অভিজ্ঞতা ও কঠোর পরিশ্রম।

ঠিক কখন বিনিয়োগ করবেন উন্নত প্রযু্িক্তর জন্য?
কেবল নতুন বলেই নতুন কিছু কেনা কখনোই ভালো বিনিয়োগ নয়। একটা ভালো সাইকেল কিনলেই আপনি ভালো সাইক্লিস্ট হতে পারবেন না। একইভাবে, নতুন প্রযুক্তির ব্যবহার আপনাকে বা আপনার প্রতিষ্ঠানকে বদলে দেবে না। প্রযুক্তির পেছনে আপনার বিনিয়োগ আপনাকে সেই পরিমাণ সুবিধা দিচ্ছে কিনা, সেটাই মূল বিবেচ্য হতে হবে। আসলে সেটা বিবেচনা করতে হবে যে কোনো বিনিয়োগের ক্ষেত্রেই।

নতুন প্রযুক্তি আপনি তখনই গ্রহণ করবেন, যখন সেটা আপনাকে কম খরচে আগের চেয়েও দ্রুত কাজ করতে সাহায্য করবে। অথবা, সাহায্য করবে আগের চেয়েও ভাল কাজ করতে। কেবল তখনই আপনি নতুন প্রযুক্তির জন্য বিনিয়োগ করতে পারেন। অন্যথায়, আপনার আর্থিক বিনিয়োগ তো বটেই, বিনিয়োগকৃত সময়টুকুও জলে যাবে। শুধু তাই নয়, মাঝে মাঝে এই অহেতুক নতুন প্রযুক্তির ব্যবহার আপনার প্রতিষ্ঠানটিকেও হুমকির মুখে ঠেলে দিতে পারে।

সুতরাং, নতুন প্রযু্িক্তর পেছনে না দৌড়িয়ে বরং আপনার ব্যবসায় বা আপনার প্রতিষ্ঠানটির দিকে ভালো করে লক্ষ্য করুন। খুঁজে বের করুন, আপনার বা আপনার প্রতিষ্ঠানের কোথায় কোথায় উন্নতির সুযোগ আছে। হয়তো, আপনার কাছে যা আছে, তাই দিয়েই আরো ভালোভাবে কাজ করা সম্ভব। নিশ্চিত করুন, আপনার বা আপনার প্রতিষ্ঠানের সম্পদের সর্বোচ্চ ব্যবহার হচ্ছে। শুধুমাত্র তারপরই আপনি প্রযুক্তির উন্নয়নের দিকে মনোযোগ দিন। এবং, সেই হাই-টেক প্রযুক্তির টুলসটিরও সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিত করুন। নিশ্চিত করুন, আপনার প্রতিষ্ঠানের কর্মীরা তাদের সর্বোচ্চটা ঢেলে দিচ্ছে, এবং আপনার প্রতিষ্ঠানের যন্ত্রপাতিরও সর্বোচ্চ ব্যবহার হচ্ছে।

Similar Posts

Leave a Reply