Get-that-Jobচাকুরীর ইন্টারভিউ এর ক্ষেত্রে সর্বোত্তম মন্ত্র হল, “সবচেয়ে ভাল এবং সবচেয়ে খারাপ পরিস্থিতির এর জন্য প্রস্তুত থাকা”।

ইতিবাচক মনোভাব এবং যথাযথ পূর্বপ্রস্তুতি এর মাধ্যমে যে কোন ইন্টারভিউ কে তার চলমান ধারার বাইরে নিয়ে আসা সম্ভব।  তবে পরিস্থিতি সবসময় প্রস্তুতির সাথে নাও মিলতে পারে।  কেননা আপনার কোন ধারনা নেই যে প্রশ্নকর্তা ঠিক কোন ধরনটি ইন্টারভিউ এর জন্য পছন্দ করবেন-আচরণগত? পরিস্থিতিগত? নাকি মিশ্র?

 

সাধারনত সকল ইন্টারভিউতে যে সকল প্রশ্নগুলো কমন সেগুলোর অনুশীলন করার কথা সবাই চিন্তা করে। এছাড়াও আপনাকে চিন্তা করতে হবে সম্ভ্যাব্য সকল মৌলিক উপায়গুলো যার মাধ্যমে প্রতিযোগিতাটিকে উৎরানো সম্ভব।  এখানে পাঁচটি কঠিন প্রশ্ন আছে যেগুলোর দ্বারা প্রশ্নকর্তা ইন্টারভিউতে প্রার্থীদেরকে বেকায়দায় ফেলে দেয়।

 

১।  “এই চাকুরিটির ক্ষেত্রে সফল হওয়ার আগে আপনি কতবার ব্যর্থ করতে ইচ্ছুক?”

এই প্রশ্নটি ইন্টারভিউ সার্কিট এর সহ-প্রতিষ্ঠাতা জন স্টার্লিং এর প্রিয় কঠিন প্রশ্ন; এই প্রশ্নটি কঠিন কেননা “যখন আমি এই প্রশ্নটি জিজ্ঞাসা করব তখন তার উত্তর আমার জানা নেই। ” তিনি বলেছেন, “এবং আমি এটি জিজ্ঞাসা করি প্রার্থীর প্রতিক্রিয়া দেখার জন্য”।

অন্যদিকে আপনি এর জবাবে বলতে পারেন আমি যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ব্যর্থ হতে চাই যেন আমি আমার ভুল থেকে শিক্ষা গ্রহণ করি এবং সামনে এগিয়ে যেতে পারি।  স্টার্লিং বলেছেন “এই উত্তর প্রমাণ করে যে প্রার্থী অসহিস্নু, অগ্রগামী, এবং পরাজয় হতে ভিত নয় (যা আমি পছন্দ করি)।

খারাপ উত্তর: “কয়েক মাস, অথবা আমি জানি না … আপনি কি মনে করেন?”

 

২। কিম্বারলি বিশপ, একজন বিশিষ্ট নির্বাহী যিনি প্রার্থীদেরকে প্রায়ই প্রশ্ন করেন “আপনার কর্মজীবনের সবচাইতে গর্বের বিষয় কি?”

বেশিরভাগ প্রার্থী এই প্রশ্ন শুনে অপ্রস্তুত হয়ে যায় এবং তাদের জবাবগুলো হয় এই ধরনের যে “আমি জানি না … এটা একটা ভাল প্রশ্ন!

প্রশ্ন যাই হোক না কেন, কোন প্রকার দ্বিধা বা বিভ্রান্তি থাকা উচিত নয়। এই প্রশ্নের একটি অন্যতম শ্রেষ্ঠ উত্তর হল তাদেরকে যেকোন একটি উল্লেখযোগ্য সফলতার গল্প বলুন এবং আপনি তাতে কেন গর্বিত তার কারণ ব্যাখ্যা করুন। অন্য কথায়, আপনার গর্বিত মুহূর্তের প্রভাব কি করে আপনাকে একটি কঠিন অথবা ব্যক্তিগত লক্ষ্যে পৌছাতে সাহায্য করেছে তা বর্ণনা করুন।

 

৩। “আপনার দুর্বলতিগুলো কি কি?”

আপনার সবচেয়ে বড় দুর্বলতাগুলো আপনি কি ভাবে প্রকাশ করেন ইন্টারভিউতে তা একটি দেখার বিষয় এবং তাই এই প্রশ্নটি প্রায়শই করা হয়। মেল কার্সন – ডিলাইটফুল কমিউনিকেশন্স, (একটি সামাজিক মিডিয়া কোম্পানীর) পরামর্শক বলেছেন  “বেশিরভাগ প্রার্থীই চিন্তা করেন তাদের চরিত্রের সবচাইতে ভাল দিকগুলো নিয়ে। কিন্তু আমি তাদের চরিত্রের দুর্বল দিকগুলো এবং আত্মসমালোচনামূলক প্রবণতার ব্যাপারে অধিক আগ্রহী।“

এই প্রশ্নের উত্তরে লিঙ্কইডইন এর ক্যারিয়ার বিশেষজ্ঞ নিকলি উইলিয়ামস বলেন আপনার চরিত্রের এমন কোন নেতিবাচক দিক আপনার তুলে ধরা উচিত নয় যার মাধ্যমে আপনার নিয়োগকর্তার মনে হতে পারে যে আপনি পদটির জন্য যোগ্য প্রার্থী নন।  উইলিয়ামস এর মতে একটি সৎ এবং ইতিবাচক জবাব হতে পারে “আমার প্রবণতা রয়েছে হ্যাঁ বলার এবং অধিক অঙ্গীকারবদ্ধ হবার,” “পরবর্তীতে এর ব্যাখ্যা করা উচিত আপনি কিভাবে অগ্রাধিকার এর মাধ্যমে আপনার কাজের তালিকা তৈরি করেন।”

 

৪। “অতীতের কোন ম্যানেজার আপনাকে সবচাইতে কম পছন্দ করেছেন, এবং তিনি আপনার সম্পর্কে আমাকে কি বলতে পারেন?”

এই প্রশ্নটির চতুরতা হল এখানে শুধুমাত্র আপনার আত্ম-সচেতনতা পরীক্ষা করার জন্য প্রশ্নটি করা হয়নি,  বরঞ্চ এটি করা হয়েছে আপনি অন্যদের দৃষ্টিকোণ থেকে আপনার দুর্বলতাগুলো নিয়ে কি বলেন সেটা যাচাই করার জন্য। এক্ষত্রে একটি ভাল উপায় হতে পারে  আপনার অতীতের কর্মক্ষেত্র সম্পর্কে ইতিবাচক মনোভাব পোষণ করা, আপনার সীমাবদ্ধতা গুলো সম্পর্কে সৎ বক্তব্য প্রদান করা এবং খোলামেলাভাবে ব্যাখ্যা করা এগুলো থেকে আপনি কি শিক্ষা গ্রহণ করেছেন।

আপনার পুরানো ম্যানেজার সম্পর্কিত বিরক্তিকর মনোভাব পোষণ কিংবা আত্ম-গম্ভীরতা বা খারাপ-নির্দেশনা না করার ব্যাপারে সতর্ক থাকুন, ইতিবাচক মনোভাবই এখানে কাম্য।

 

৫। “আপনার মতে আপনার পূর্ববর্তী পেশায় কোন বিষয়গুলো অনৈতিক ছিল?”

“তারা যদি বলে কিছুই না, তবে তারা মিথ্যা বলছে” বলেন ডন ফিন, মানব সম্পদ ব্যবস্থাপনা এবং পরামর্শকারী সংস্থার এইচ আর বিভাগের প্রধান। “এবং আপনি আপনার প্রতিষ্ঠানে কোন মিথ্যাবাদীকে পছন্দ করবেন না”।

তাঁর ভাষ্যমতে কিছু বিষয় থাকে যা কোন না কোন ক্ষেত্রে অনৈতিক বলে মনে হয়, এবং সেটি সবার ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য। তিনি এই বিষয়গুলো সম্পর্কে জানতে চান আপনাকে তাঁর প্রতিষ্ঠানে নিয়োগ দেওয়ার পূর্বে।

এই প্রশ্নটি আপনার দুর্বলতাগুলো সম্পর্কে আবরণ উন্মোচন করার একটি সহজ উপায়।  আপনি কোন বিষয়টিকে দায়ী বলবেন? আবার, এই পদ্ধতিতে সবচেয়ে ভালো উপায় হলো সত্য কথাটি ইতিবাচক প্রক্রিয়ায় বলা।

[অনুবাদ]

Similar Posts

Leave a Reply